সীমান্তে হামলার চেষ্টা করছে পাকিস্তান, হাই অ্যালার্ট জারি ভারতের

চীনের সঙ্গে অশান্তি যখন স্তিমিত হওয়ার পথে, তখন নতুন করে অশান্তির আবহ তৈরি হচ্ছে পাকিস্তান সীমান্তে। কাশ্মীর সীমান্ত দিয়ে ভারতে ঢোকার জন্য ওত পেতে বসে আছে জঙ্গিরা। ইতিমধ্যেই জারি করা হয়েছে হাই অ্যালার্ট। ভারতীয় গোয়েন্দাদের দাবি, কাশ্মীরের ভীমবের গালি ও নওসেরা সেক্টরে ঢোকার চেষ্টা করছে পাকিস্তানের ‘ব্যাট’ বাহিনী বা বর্ডার অ্যাকশন টিম।

ভারতীয় গণমাধ্যম বলছে, ইতিমধ্যেই সেনাবাহিনীকে সেই তথ্য দেওয়া হয়েছে। তাদের কড়া নজর রাখতে বলা হয়েছে। ভারতের দিকে জঙ্গিদের আনাগোনা বাড়ছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। এর আগে গত জানুয়ারিতে মহম্মদ আসলাম নামে এক ভারতীয়ের মুণ্ডহীন দেহ পাওয়া যায় সীমান্তের কাছে। ব্যাট বাহিনীর হামলাতেই সেই ঘটনা ঘটেছিল বলে মনে করা হয়। বিএসএফের এক উচ্চপদস্থ কর্তা বলেন, ‘বিগত কয়েক ঘণ্টায় এমন কিছু তথ্য আমাদের হাতে এসেছে। সেনাবাহিনীকে অ্যালার্ট করা হয়েছে। বিশেষত দুটি সেক্টরে বিশেষ নজর দিতে বলা হয়েছে। প্যাট্রলিং বাড়ানো হয়েছে।

কি এই বর্ডার অ্যাকশন টিম?
২০১৩ সালে প্রথম নজরে আসে পাকিস্তানের সেনার এই বিশেষ টিম। চূড়ান্ত প্রশিক্ষণ দিয়ে বেশ কিছু সন্ত্রাসবাদীকে এই বাহিনীতে কাজে লাগায় পাকিস্তান। ভারতের সীমান্তের ১ থেকে ৩ কিলোমিটার ভিতরে গিয়ে নৃশংস হত্যালীলা চালিয়ে আসার জন্যই তৈরি করা হয়েছে এই বিশেষ বাহিনী। পাকিস্তানের স্পেশাল সার্ভিস গ্রুপ এই বাহিনী তৈরি করে। ভারতের মার্কোস ও ব্ল্যাক ক্যাটের কাছে যেসব অস্ত্র রয়েছে সবরকম অস্ত্রই ব্যবহার করে BAT. এই বাহিনীকে সম্পূর্ণভাবে সাহায্য করে আইএসআই। সব ধরনের নৃশংস কাজ করার ট্রেনিং দেওয়া হয় এদের। শিরচ্ছেদ কিভাবে করতে হয় সেটাও শেখানো হয়। এমনকি কাঁচা মাংস খাওয়ার প্রশিক্ষণও পায় এরা।

সূত্র : কলকাতা ২৪x৭ এর।

LEAVE A REPLY