তৈরি পোশাক রপ্তানিতে বাধা উচ্চ শুল্কহার: বাণিজ্যমন্ত্রী

প্রতীকী ছবি

রাশিয়া ও ব্রাজিলসহ বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশের তৈরি পোশাকের প্রচুর চাহিদা থাকলেও উচ্চ শুল্কহারের কারণে এ সব দেশে পণ্য রপ্তানি করা যাচ্ছে না বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। তিনি বলেন, ফ্রি ট্রেড অ্যাগ্রিমেন্ট (এফটিএ) স্বাক্ষর করা সম্ভব হলে এসব দেশে বাণিজ্য বৃদ্ধি করা সম্ভব। এতে বাংলাদেশের রপ্তানি আয় কয়েকগুণ বৃদ্ধি পাবে। তাই বাংলাদেশ এসব দেশের সঙ্গে এফটিএ স্বাক্ষরের প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। শনিবার স্থানীয় একটি হোটেলে কমনওয়েল্থ অফ ইন্ডিপেনডেন্ট স্টেট-বাংলাদেশ চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (সিআইএস-বিসিসিআই) আয়োজিত ‘ফোস্টারিং গ্লোবাল ফ্রি ট্রেড রিলেশনস’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে গেলে বিশ্ববাণিজ্য প্রসারের জন্য বিভিন্ন দেশের সঙ্গে এফটিএ করার বিকল্প নেই। ২০২৪ সালে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হবে। এর তিন বছর পর এলডিসিভুক্ত দেশের বাণিজ্য সুবিধাগুলো আর থাকবে না।

টিপু মুনশি বলেন, প্রতিযোগিতামূলক বিশ্ববাণিজ্যে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে বাণিজ্য সুবিধা বৃদ্ধি করতে হবে। রাশিয়া, ব্রাজিলের পাশাপাশি শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড, ভুটানসহ বেশ কিছু দেশের সঙ্গে এফটিএ স্বাক্ষর করার প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে। তিনি বলেন, দেশের রাজস্ব আয় বৃদ্ধির জন্য পণ্যের ওপর শুল্ক আরোপ করা হয়। পণ্যের ওপর শুল্প আরোপের ক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বন করা প্রয়োজন। যাতে এর ফলে বাণিজ্যের ওপর কোনো প্রভাব না পড়ে।

সিআইএস-বিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্ট মো. হাবিব উল্লাহ ডনের সভাপতিত্বে সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সংগঠনের উপদেষ্টা মঞ্জুর আহমেদ। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান, বাণিজ্য সচিব ড. মো. জাফর উদ্দীন ও অতিরিক্ত সচিব (এফটিএ) শরিফা খান, রাশিয়ান ফেডারেশনের ঢাকা অফিসের ফার্স্ট সেক্রেটারি আনদ্রেই ই. বেনকায়েভ প্রমুখ।

LEAVE A REPLY