১০হাজার মিটার কারেন্ট জাল ধ্বংস -দেওয়ানগঞ্জে মা ইলিশ শিকারের অপরাধে ১১জেলের জরিমানা

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জে যমুনা নদীতে সোমবার ভোরে অভিযান চালিয়ে ৩লক্ষ টাকার ১০হাজার মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করে আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। এ সময় সজল (৪৫), মনু মিয়া (৩৫), হাবিল (৩০) নিশান (৩৫), মঞ্জুরুল (৩৫), লাল মিয়া (২৫), দুলাল (৩৫), সুজা মিয়া (২৫), ফজলু (৪০), চাঁন মিয়া (৩৫) সোনা মিয়া (৩৫) নামে ১১জন মৎস্য শিকারীর কাছ থেকে ৫২হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। আটকৃত মৎস্য শিকারীরা হলেন উপজেলার চর হলকা হাবড়াবাড়ী ও টিনেরচর গ্রামেরবাসিন্দা। সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাহমিনা আক্তার ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন. উপজেলা মৎস্য অফিসার মাহমুদুর রহমান, বাহাদুরাবাদ নৌ থানার ওসি মিজানুর রহমান, চুকাইবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম খান।

মৎস্য অফিসার মাহমুদুর রহমান জানান. ইলিশ সম্পদ সংরক্ষনে ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুম ৯অক্টোবর থেকে ৩০অক্টোবর পর্যন্ত সারাদেশে ইলিশ মাছ আহরণ পরিবহন মজুদ বাজারজাতকরণ ক্রয়-বিক্রয় বিনিময় নিষিদ্ধ করা হয়েছে। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কিছু অসাধু ব্যক্তি সোমবার ভোরে যমুনা নদীর হরিণধরা ও টিনেরচর এলাকায় কারেন্ট জাল ফেলে মা ইলিশ শিকার করছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে নৌথানা ওসি মিজানুর রহমানসহ অভিযান চালিয়ে ১০হাজার মিটার কারেন্ট জাল, চার কেজি মা ইলিশ জব্দ করা হয়। পরে মৎস্য সংরক্ষন আইনে জাল জন সম্মুখ্যে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয় এবং আটককৃতদের মাথাপিছু ৫হাজার টাকা করে জরিমানা আদায় করে ছেড়ে দেওয়া হয়। জব্দকৃত মাছ গুলো স্থানীয় এতিম খানায় বিতরণ করা হয়। নৌ থানার ওসি মিজানুর রহমান জানান. যমুনা নদীতে প্রশাসনের কঠোর নজরদারী রয়েছে। প্রতি রাতেই যমুনা নদীতে টহল পুলিশের টহল অব্যাহত রয়েছে।

LEAVE A REPLY