জলবায়ু তহবিল গঠনে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহবান

ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া

বাংলাদেশের ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া বলেছেন, প্যারিস জলবায়ু সম্মেলনকে কেন্দ্র করে জলবায়ুর বিরুপ প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্থ দেশের জন্য আন্তর্জাতিক তহবিল গঠন করা জরুরী। মঙ্গলবার (১৬ অক্টোবর) রাতে সার্বিয়ার বেলগ্রেডে অনুষ্ঠেয় ১৪১ তম আইপিইউ সম্মেলনে ইমারজেন্সি আইটেম এর উপর বক্তৃতাকালে একথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের উপকুলবর্তী ১৯টি জেলায় প্রায় ৩ কোটি মানুষ বসবাস করে। জলবায়ু পরিবর্তনের চ্যালেঞ্জের সাথে এ মানুষগুলো সরাসরি সম্পৃক্ত। যদি সমুদ্র পৃষ্ঠের উচ্চতা ১ মিটার বেড়ে যায় তাহলে ১৫ শতাংশ ভূমি পানির নিচে তলিয়ে যেতে পারে। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে উপকুলবর্তী মানুষগুলো উদ্বাস্তুতে পরিণত হতে পারে।

ডেপুটি স্পিকার বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতি রোধ করতে প্রধানমন্ত্রী বেশকিছু কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ ক্লাইমেট চেঞ্জ স্ট্রাটেজি এন্ড অ্যাকশন প্ল্যান (বিসিসিএসএপি) ২০০৯ গঠন করা হয়। পরিবেশের সাথে মানিয়ে নেয়ার জন্য সাথে সংস্থাটিকে জাতীয় পর্যায়ের সেরা প্রতিষ্ঠান বলা যেতে পারে।

সভায় তিনি আরো জানান বাংলাদেশ অভিযোজন ও উপশম খাতে ক্লাইমেট চেঞ্জ ট্রাস্ট ফান্ড (বিসিসিটিএফ) এ নিজস্ব তহবিল থেকে ৪৫০ মিলিয়ন ইউএস ডলার (৩৮০০ কোটি টাকা) বরাদ্দ দিয়েছে।

উন্নত দেশগুলোকে কার্বণ নির্গমণ হ্রাসে নেতৃত্ব দেয়ার জন্য ডেপুটি স্পিকার সভায় প্রস্তাব করেন। তিনি আরো বলেন, আঞ্চলিক এবং সমন্বিত দুই ধরণের পদক্ষেপ গ্রহণের মাধ্যমে জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতি কমাতে সংসদ সদস্যগণ জোরালো ভুমিকা রাখতে পারে।

সভায় ব্যাক্তিগত ও প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে দক্ষতা উন্নয়নের লক্ষ্যে ক্লাইমেট ফিনান্স হাব গঠনের প্রস্তাব করে বাংলাদেশ।

source: ভোরের কাগজ

LEAVE A REPLY