প্রিমিয়ার লিগ ও সিরি আ’য় জমে উঠেছে শেষ মুহূর্তের নাটক

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ম্যানচেস্টার সিটির গোলরক্ষক এডারসনকে কাটিয়ে গোল করেন ওয়েস্টহামের ইংলিশ ফরোয়ার্ড জ্যারড বাওয়েন

ইউরোপিয়ান ক্লাব ফুটবলের শীর্ষ পাঁচটি লিগের তিনটিতেই এরই মধ্যে শিরোপা নিশ্চিত হয়ে গেছে। লা লিগায় শিরোপা নিশ্চিত করেছে রিয়াল মাদ্রিদ, বুন্দেসলিগায় বায়ার্ন মিউনিখ ও লিগ ওয়ানে পিএসজি। বাকি রইল আর দুটি- ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ ও ইতালিয়ান সিরি আ। এই দুটি লিগ শেষ মূহর্তে বেশ জমে উঠেছে। শিরোপার নিষ্পত্তির জন্য অপেক্ষা করতে হবে শেষ সপ্তাহ পর্যন্ত।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে সোমবার রাতে ওয়েস্ট হ্যামের বিপক্ষে শুরুতে ২-০ গোলে পিছিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত ২-২ গোলের স্বস্তির ড্র নিয়ে ফিরেছে গার্দিওলার শিষ্যরা। এই জয়ে লিভারপুলের বিপক্ষে তাদের পয়েন্ট ব্যবধান এখন চার। তবে ম্যানচেস্টার সিটি একটি ম্যাচ বেশি খেলে ফেলেছে। যে কারণে শেষ দুটি ম্যাচে লিভারপুল যদি জিতে যায়, তাহলে সিটিকে শিরোপা নিশ্চিত করতে শেষ ম্যাচটি অবশ্যই জয় পেতে হবে। অন্যদিকে ইতালিয়ান সিরি আ জমিয়ে তুলেছে নগরপ্রতিদ্বন্দ্বী দুই ক্লাব এসি মিলান ও ইন্টার মিলান। শেষ ম্যাচে দুই দলেরই জয়ে সমান ৩৭ ম্যাচ থেকে এসি মিলানের পয়েন্ট ৮৩ এবং ইন্টারের পয়েন্ট ৮১।

সেক্ষেত্রে শেষ ম্যাচে এসি মিলানের ১১ বছর পর শিরোপার দেখা পেতে অবশ্যই জয় পেতে হবে শেষ ম্যাচটি। গতবারের ইতালিয়ান চ্যাম্পিয়ন ইন্টার যদি শেষ ম্যাচটি জিতে যায় আর এসি মিলান যদি ড্রও করে, তাহলেও শিরোপা উল্লাসে মাতবে ইন্টার। কেননা গোল পয়েন্টে তারা এগিয়ে। আর এই দুটি লিগের নিষ্পত্তির জন্য অপেক্ষা করতে হবে ২২ মে পর্যন্ত।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে টেবিল টপার সিটির শেষ ম্যাচ অ্যাস্টন ভিলার বিপক্ষে ইতিহাদে। অ্যাস্টন ভিলার কোচ সাবেক লিভারপুল কিংবদন্তি স্টিভেন জেরার্ড। প্রিয় ক্লাবকে শিরোপা উল্লাসে মাততে দেখতে হলে ৯০ মিনিট আটকে রাখতে হবে সিটিকে। কেননা সিটি জয় পেলেই শিরোপা তাদের। আর যদি সিটি হারে বা ড্র করে, অন্যদিকে লিভারপুল শেষ দুটি ম্যাচ জিতে যায় তাহলেই শিরোপা তাদের। গতকাল ম্যানসিটির ড্রতে লিভারপুল কিছুটা স্বস্তিই পেয়েছে বলা যায়। তাদের শেষ দুটি ম্যাচ টেবিলের ১৫ নম্বর সাউদাম্পটনের বিপক্ষে এবং আট নম্বরে থাকা উলভসের বিপক্ষে। যে কারণে শেষ দুটি ম্যাচে জয় তুলে নিয়ে লিভারপুল কোচ ক্লপ শিরোপার জন্য সাবেক লিভারপুল তারকা জেরার্ডের ওপর আস্থা রাখতেই পারেন। অন্যদিকে সিরি আ’তে লিগের শেষ সপ্তাহে এসি মিলান যদি সাসসুয়োলোর সঙ্গে পয়েন্ট হারায়, আর ইন্টার যদি নিজেদের শেষ ম্যাচে সাম্পদোরিয়ার বিপক্ষে জেতে, তবেই লিগের আশা পূরণ হবে ইন্টারের।

শিরোপা জিততে সিটির দরকার জয় আর ওয়েস্ট হ্যামের তিন পয়েন্ট দরকার ইউরোপা লিগ নিশ্চিতের জন্য। তবে দুই দলই পয়েন্ট ভাগাভাগি করে এখন শঙ্কায়। নিজেদের মাঠে প্রথমার্ধে জয়ের সুযোগ তৈরি করে ওয়েস্ট হ্যাম। ২৪ ও ৪৫ মিনিটে ডান দিক থেকে ঢুকে দুবার সিটির জালে বল জড়িয়েছেন ওয়েস্ট হ্যামের ইংলিশ ফরোয়ার্ড জ্যারড বাওয়েন, দুবারই জিনচেঙ্কোকে এড়িয়ে লাপোর্ত ও ফার্নান্দিনিওর ফাঁক গলে ঢুকেছেন সিটি বক্সে। মূল চার ডিফেন্সের ইনজুরিটা যে সিটিকে ভোগাবে বলে মনে হচ্ছিল তার প্রতিফলন দেখা যায় এই ম্যাচেই।

তবে দ্বিতীয়ার্ধে ঠিকই ম্যাচে ফিরে আসে গার্দিওলার শিষ্যরা। ৪৯তম মিনিটে রদ্রির হেডে বাড়ানো বল পেয়ে জোরালো ভলিতে দারুণভাবে লক্ষ্যভেদ করে ব্যবধান কমান জ্যাক গ্রিলিশ। ৬৯ মিনিটে সিটি সমতায় ফেরে ওয়েস্ট হ্যাম ডিফেন্ডার ভøাদিমির কুফালের আত্মঘাতী গোলে। এরপর জয়েরও দ্বারপ্রান্তে চলে গেছিল সিটি। ৮৫ মিনিটে বক্সের ভেতর গাব্রিয়েল জেসুস ফাউলের শিকার হলে ভিএআর দেখে পেনাল্টি দেন রেফারি। জয়ের আশা জাগলেও আলজেরিয়ান মিডফিল্ডারের মাহরেজের ডান দিকে নেওয়া শট ঝাঁপিয়ে ঠেকান ওয়েস্ট হ্যাম গোলরক্ষক ফাবিয়ানস্কি। শেষ পর্যন্ত ২-২ সমতাতেই শেষ হয় খেলা।

এই ড্রয়ে ৩৭ ম্যাচে শীর্ষে থাকা সিটির পয়েন্ট ৯০। ৩৬ ম্যাচে ৮৬ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে লিভারপুল এবং ৩৭ ম্যাচে ৫৬ পয়েন্ট নিয়ে সাতে ওয়েস্ট হ্যাম।
সিরি আতে আতালান্তাকে ২-০ গোলে হারিয়ে ১১ বছর লিগ শিরোপা জয় থেকে মাত্র এক ম্যাচ দূরে এসি মিলান। তারা মৌসুমের শেষ ম্যাচটা খেলবে সাসসুয়োলোরের বিপক্ষে। দ্বিতীয়ার্ধে ৫৬ মিনিটে মিলানকে এগিয়ে দেন পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড রাফায়েল লিয়াও। এরপর ৭৫ মিনিটে দ্বিতীয় গোলটি করেন থিও হার্নান্দেজের।

আরেক ম্যাচে কালিয়ারিকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে ইন্টার মিলান। আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার লাওতারো মার্তিনেজের জোড়া গোলের সঙ্গে ইতালিয়ান ফুলব্যাক মাত্তেও দারমিয়ানের করেছেন আরেকটি গোল। আর কালিয়ারির হয়ে একমাত্র গোলটি করেছেন গ্রিক ফুটবলার চারালাম্পোস লাইকোজিয়ান্নিস। এই ম্যাচে গোল করার মাধ্যমে ইন্টারের হয়ে সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৭৪ গোল করে সাবেক ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার আদ্রিয়ানোকে ছুঁয়ে ফেললেন লাওতারো।

অন্যদিকে লা লিগায় সোমবার মাঠে নামে বার্সেলোনা, রিয়াল মাদ্র্রিদ, অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদের মতো দলগুলো। গেতাফের মাঠে গোলশূন্য ড্র করেছে বার্সেলোনা। অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ নিজেদের মাঠে ১-১ গোলে ড্র করেছে সেভিয়ার বিপক্ষে এবং রিয়াল মাদ্রিদকে নিজেদের মাঠ সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে ১-১ গোলে রুখে দিয়েছে কাদিজ। আর এই ড্রতেই লিগ টেবিলের দ্বিতীয় স্থান নিশ্চিত হয়ে গেল বার্সেলোনার। এতেই আগামী মৌসুমে স্প্যানিশ সুপার কাপে রিয়াল মাদ্রিদ, রিয়াল বেতিস, ভ্যালেন্সিয়ার পর টিকিট নিশ্চিত হলো বার্সার। সৌদি আরবে অনুষ্ঠিত নতুন ছকের স্প্যানিশ সুপার লিগে অংশ নিচ্ছে স্প্যানিশ কাপের ফাইনাল খেলা দুই দল এবং লিগের প্রথম দুই দল।

LEAVE A REPLY