গুলিতে ৬ জন নিহতের পর লিবিয়া ছাড়তে মরিয়া অভিবাসনপ্রত্যাশীরা

আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সহযোগিতা চাইতে ত্রিপোলির জাতিসংঘ কেন্দ্রের সামনে অবস্থান নেন শত শত অভিবাসনপ্রত্যাশী। পুলিশের গুলিতে অন্তত ছয়জন নিহত হওয়ার পর লিবিয়া ছাড়তে মরিয়া তারা।

এক সপ্তাহ আগে রাজধানী ত্রিপোলির বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা অভিবাসনপ্রত্যাশীদের বিরুদ্ধে ব্যাপক অভিযান শুরু করে লিবিয়ার আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। অভিযানে পাঁচ হাজারেরও বেশি অভিবাসনপ্রত্যাশীকে আটক করে কারাগারে পাঠানো হয়।পাঁচ হাজারেরও বেশি অভিবাসনপ্রত্যাশীকে রাখায় ত্রিপোলির কারাগারে ভিড় অত্যন্ত বেড়ে যায়। শুক্রবার ব্যাপক হাঙ্গামা শুরু হয়ে যায় সেখানে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ গুলি চালালে অন্তত ছয়জন অভিবাসনপ্রত্যাশী নিহত হয় বলে জাতিসংঘের অভিবাসন সংক্রান্ত সংস্থা আইওএম জানায়।

অতিরিক্ত ভিড়ে গোলযোগ বেধে গেলে এক সুযোগে অনেক অভিবাসনপ্রত্যাশী কারাগার থেকে পালিয়ে যায়। পরে অভিযান চালিয়ে তাদের অনেককে আবার আটক করে পুলিশ।

রবিবার ত্রিপোলির জাতিসংঘ কেন্দ্রের সামনে শত শত অভিবাসনপ্রত্যাশী ভিড় জমান। তাদের অনেকের শরীরের বিভিন্ন স্থানে ব্যান্ডেজ বা আঘাতের চিহ্ন ছিল।

লিবিয়া হয়ে ইউরোপে প্রবেশের উদ্দেশ্যে ত্রিপোলিতে আশ্রয় নিয়েছেন কয়েক হাজার অভিবাসনপ্রত্যাশী। তাদের একজন মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ বললেন, ‘‘অভিবাসনের আশায় দেশ ছেড়েছি- শুধু এটাই আমাদের অপরাধ। অপরাধীদের মতো আচরণ করা হচ্ছে আমাদের সঙ্গে।’’ সুদান থেকে আসা ২৫ বছর বয়সী আব্দুল্লাহর দাবি, লিবিয়ায় এ পর্যন্ত পাঁচ জায়গায় বন্দি করা হয়েছে তাকে এবং প্রত্যেক জায়গাতেই তার ওপর অকথ্য নির্যাতন চালানো হয়েছে।

তিন বছর আগে সুদান থেকে লিবিয়ায় গেছেন নাদিয়া আব্দেল রহমান। স্বামী, দুই সন্তান, বোন, দুলাভাই এবং এক ভাগ্নিও ছিল তার সঙ্গে। কিন্তু দুর্বৃত্তরা তার স্বামীকে আটক করে মোটা অঙ্কের মুক্তিপণ দাবি করে। সেই টাকা দেয়ার পরও স্বামীকে মেরে ফেলা হয়। দুলাভাই মারা যান ভূমধ্যসাগরে ডুবে। এখন নাদিয়ার একটাই কথা, ‘‘যে-কোনো উপায়ে আমরা লিবিয়া ছাড়তে চাই।’’

জাতিসংঘের অভিবাসন বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর বলেছে, ত্রিপোলির জাতিসংঘ কেন্দ্রের সামনে ভিড় করা অভিবাসনপ্রত্যাশীদের সহযোগিতা করতে প্রস্তুত তারা। তবে যাদের অবস্থা বেশি খারাপ, সহযোগিতার হাত তাদের দিকেই আগে বাড়ানো উচিত বলে মনে করে তারা। তাই অগ্রাধিকার তালিকায় কাদের রাখা যেতে পারে তা চিহ্নিত করার জন্য জাতিসংঘ কেন্দ্রের সামনের ভিড় কমানোর আহ্বান জানিয়েছে ইউএনএইচসিআর। সূত্র: ডয়চে ভেলে

LEAVE A REPLY