২০০ কোটি টাকা আত্মসাতের মামলায় জেরার মুখে জ্যাকুলিন

আর্থিক আত্মসাতের মামলায় ফেঁসেছেন জ্যাকুলিন ফার্নান্ডেজ। এক বা দুই লাখ নয়, একদম ২০০ কোটি টাকা আত্মসাতের মামলায় গোয়েন্দাদের জেরার মুখে পড়তে হচ্ছে বলিউডের এই গ্ল্যামাড় কুইনকে। গত শনিবার এই নিয়ে দ্বিতীয়বার ভারতের কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট এর গোয়েন্দারা জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন জ্যাকলিনকে। প্রতারক সুকেশ চন্দ্রশেখরকে জ্যাকুলিনই নাকি যুক্ত করিয়েছিলেন। তবে প্রথমবার জেরার পর জ্যাকুলিন জানান, তিনি নিজেও প্রতারণার শিকার। 

ভারতের মুম্বাই মহারাষ্ট্রের একজন বড়সড় প্রতারক সুকেশ চন্দ্রশেখর। ভারতের বহু নামী ব্যবসায়ীর টাকা আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। একাধিকবার সুকেশের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করাও হয়েছে। রানব্যাক্সির মতো বড় কোম্পানির প্রোমোটার শিবিন্দর সিং ও মালবিন্দর সিংও ২০০ কোটি টাকার প্রতারণার শিকার হয়েছেন। এছাড়াও অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র, প্রতারণা, তোলাবাজির অভিযোগ রয়েছে সুকেশের বিরুদ্ধে। জেরার পর জ্যাকুলিনের সঙ্গে সুকেশের যোগাযোগ আরও খতিয়ে দেখার চেষ্টায় রয়েছেন গোয়েন্দারা। বর্তমানে রোহিনী জেলে আছে সুকেশ। গোয়েন্দাদের ধারণা, জেলে বসেই এই কার্যকলাপ সে চালায়। সুকেশ চন্দ্রশেখর ও তার প্রেমিকা লীনা পালের কথায় ফেঁসে ২০০ কোটি টাকা খুইয়েছেন বলে জানিয়েছেন জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজ। প্রথমবার জিজ্ঞাসাবাদের পর সুকেশের বিষয়ে আরও গুরুত্বপূর্ণ তথ্য গোয়েন্দাদের জানান অভিনেত্রী। গোয়েন্দা বিভাগের মতে, জ্যাকুলিনের তরফে দেওয়া তথ্য এই মামলার সমাধান করতে সাহায্য করতে পারে। 

LEAVE A REPLY