নভেম্বরেই মিলবে চীনের ভ্যাকসিন

ভ্যাকসিন/ফাইল ছবি।

চীনের তৈরি করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন আগামী নভেম্বরের মধ্যে সাধারণের নাগালের মধ্যে আসতে পারে এমন তথ্য জানিয়েছেন দেশটির রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, চীনের চারটি ভ্যাকসিন ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। চারটির মধ্যে তিনটি ভ্যাকসিন জরুরি কাজে নিয়োজিত কর্মীদের গত জুলাই থেকে দেয়া হচ্ছে।

রোগ নিয়ন্ত্রণের প্রধান কর্মকর্তা গুইজেন ইয়ু জানান, তিনটি ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল ভালোভাবে সম্পন্ন হয়েছে এবং তা আগামী নভেম্বর ও ডিসেম্বরের মধ্যে সাধারণদেরও ব্যবহার উপযোগী হতে পারে।

তিনি জানান, এপ্রিলে তিনি নিজেও করোনার ভ্যাকসিন নিয়েছিলেন। কিন্তু তার মধ্যে কোনো অস্বাভাবিক উপসর্গ দেখা যায়নি।

রাষ্ট্রীয় সংস্থা চায়না ন্যাশনাল ফার্মাসিউটিক্যাল গ্রুপ (সিনোফার্ম) ও যুক্তরাষ্ট্রে তালিকাভুক্ত সিনোভ্যাক বায়োটেক দেশটির জরুরি ব্যবহারের জন্য তিনটি ভ্যাকসিন তৈরিতে কাজ করছে। চতুর্থ আরেকটি ভ্যাকসিন তৈরিতে কাজ করছে ক্যানসিনো বায়োলজিকস। সেটি দেশটির সেনাবাহিনীদের জন্য অনুমোদন দেয়া হয়েছিল।

বৈশ্বিক ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারীরা কার্যকর একটি ভ্যাকসিন তৈরির পেছনে ছুটছে। সেপ্টেম্বরের শুরুতে পশ্চিমা ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারীরা ভ্যাকসিন গবেষণার মানের দিকটি গুরুত্ব দিয়েছে। সে ক্ষেত্রে কোনো রাজনৈতিক চাপে বা হুলুস্থুল করে ভ্যাকসিন অনুমোদন না দেয়ার কথা বলা হয়েছে।

পিআর

LEAVE A REPLY