জেমি ডের জন্য আজ মহাগুরুত্বপূর্ণ দিন

করোনা ভাইরাসের কারণে টালমাটাল অবস্থা ছিল বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গনের। তবে শত বাধা-বিপত্তি মাথায় রেখেই আবারো সচল করার চেষ্টা চলছে। তারই অংশ হিসেবে বিশ্বের নানা প্রান্তে খেলাধুলা শুরু হয়ে গেছে। তেমনই বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা ফের অক্টোবর-নভেম্বর মাসে স্থগিত হয়ে যাওয়া কাতার বিশ্বকাপের বাছাই পর্বের ম্যাচ শুরু করার সময় ঠিক করেছে। আর এরপরই বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচ খেলার জন্য প্রস্তুতি শুরু করেছে দেশগুলো। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনও (বাফুফে) চলতি আগস্ট মাস থেকেই অনুশীলন ক্যাম্পের আয়োজন করে। কিন্তু যে করোনার কারণে বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গন থমকে গিয়েছিল সেই করোনাই বড় বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশের অনুশীলনে।

যে ৩৫ জন খেলোয়াড় নিয়ে বাফুফে অনুশীলন করার পরিকল্পনা করেছিল তার মধ্যে ৩০ জন খেলোয়াড়ের করোনা পরীক্ষা করে ১৮ জনের দেহে প্রাণঘাতী করোনার অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। ফলে এখন পুরোপুরিভাবে হুমকির মুখে পড়ে গেছে অনুশীলন ক্যাম্প। তবে ৩০ জনের মধ্যে ১৮ জনেরই করোনা ধরা পড়ায় বিস্ময়ের সৃষ্টি হয়েছে সবার মাঝে। তাই যাদের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে তাদের আজ সোমবার দুটি আলাদা প্রতিষ্ঠানে আবার করোনা পরীক্ষা করা হবে, নিশ্চিত হওয়ার জন্য যে সত্যিই কি ১৮ জনের করোনা হয়েছে নাকি কোথাও কোনো ভুল হয়েছে। আর তাই এক জায়গার বদলে দুই জায়গায় তাদের করোনা ভাইরাস পরীক্ষা করা হবে। যদি এক জায়গায় ভুল হয়েও থাকে তাহলে যেন আরেক জায়গায় তা ধরা পড়ে।

আজ যেহেতু আবার খেলোয়াড়দের করোনা ভাইরাস পরীক্ষা করা হবে তাই দিনটিকে মহাগুরুত্বপূর্ণ বলেছেন জাতীয় দলের কোচ জেমি ডে। কারণ এই পরীক্ষার মাধ্যমেই বাংলাদেশের অনুশীলন ক্যাম্পের ভবিষ্যৎ নির্ধারিত হবে। কোচ জেমি ডে আশা করছেন তিনি এই দ্বিতীয় পরীক্ষার পর স্বস্তির খবর পাবেন। কারণ তার বিশ্বাস ১৮ জনেরই ফের করোনা ধরা পড়বে না।

তাছাড়া তিনি আরো জানিয়েছেন যদি সত্যিই ১৮ জনের ফের করোনা ধরা পড়ে তাতেও তিনি অনুশীলন ক্যাম্পে কোনো পরিবর্তন আনবেন না। কারণ তিনি অন্যদের চেয়ে সেরাদেরই অনুুশীলন ক্যাম্পের জন্য ডেকেছেন। তাছাড়া জেমি বলেন, তিনি নতুন করে যাদের ডাকবেন তাদেরও যদি করোনা ধরা পড়ে তাতে কোনো লাভ হবে না।

এদিকে বাফুফে সূত্রে জানা গেছে, যেসব খেলোয়াড়ের দুই পরীক্ষাতেই করোনা পজেটিভ আসবে তাদের সম্পূর্ণ আলাদা করে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হবে। আর যাদের দুই পরীক্ষাতেই নেগেটিভ আসবে তাদের অনুশীলন মাঠে নামিয়ে দেয়া হবে। আর দুই পরীক্ষায় দুই রকম ফলাফল আসলে তাদের ফের করোনা পরীক্ষা করা হবে। কারণ দুই জায়গায় দুই রকম ফলাফল আসা মানে তাদের ভুল রিপোর্ট এসেছে।

এদিকে অনুশীলন ক্যাম্পে যোগ দেয়ার জন্য এখনো ডেনমার্ক থেকে বাংলাদেশে আসতে পারেননি অধিনায়ক জামাল ভ‚ঁইয়া। মূলত দেশটিতে ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা থাকায় তিনি বাংলাদেশে আসতে পারছেন না। তবে আগামী মাস থেকে ডেনমার্ক কড়াকড়ি শিথিল করতে পারে। আর তখনই বাংলাদেশে আসবেন জামাল।

এমএইচ

LEAVE A REPLY