টাইগারদের কোচিংয়ের দায়িত্বে যারা

টাইগারদের পরবর্তী মিশন শ্রীলঙ্কা সফর। প্রধান কোচ স্টিভ রোডসের বিদায় নিশ্চিত হয়ে গেছে। অন্তর্বর্তীকালীন কোচ খালেদ মাহমুদ সুজনের অধীনেই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলবে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। এদিকে পারিবারিক কারণে শ্রীলঙ্কা সফরে থাকবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন ব্যাটিং কোচ নেইল ম্যাকেঞ্জি। যে কারণে এই সফরে বাংলাদেশ দলের ব্যাটিং কোচ হিসেবে সাবেক ভারতীয় ক্রিকেটার ওয়াসিম জাফরকেই দায়িত্ব দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিসিবি। এ ছাড়া বিদায় নিশ্চিত হওয়ায় বিশ্বকাপের পর আর বাংলাদেশেই ফেরেননি পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ। শ্রীলঙ্কা সফরে পেস বোলিং কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন চাম্পাকা রামানায়েকে। সাবেক এই লঙ্কান পেসারই এখন মাশরাফি, মোস্তাফিজ, রুবেলদের পেস বোলিং শেখাবেন। তা ছাড়া স্পিন বোলিং কোচ সুনীল জোশির থাকা নিয়েও রয়েছে শঙ্কা। জোশিকে পাওয়া না গেলে বাড়তি দায়িত্ব নিতে হবে রামানায়েকেকে। অর্থাৎ তিনিই হবেন শ্রীলঙ্কা সফরে টাইগারদের বোলিং কোচ।
বাংলাদেশ দলের কোচিং স্টাফে বড় ধরনের পরিবর্তন আসার বিষয়টি জানা গিয়েছিল বিশ্বকাপ চলাকালেই। পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশের পারফরমেন্সে অসন্তুষ্ট ছিলেন বিসিবি কর্মকর্তারা। তাই বিশ্বকাপ মিশনের শেষ দিকে এসেই তাকে বিদায় বলে দেয় বিসিবি। যে কারণে বিশ্বকাপ মিশন শেষ করে বাংলাদেশে ফেরেননি ওয়ালশ। আর তার জায়গায় টাইগারদের পেস বোলিং কোচ হিসেবে দায়িত্ব পেলেন শ্রীলঙ্কার চাম্পাকা রামানায়েকে।
চাম্পাকা রামানায়েকের জন্ম ১৯৬৫ সালের ৮ জানুয়ারি শ্রীলঙ্কার গলেতে। ১৯৮৬ সালের ৮ মার্চ পাকিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে ম্যাচ দিয়ে জাতীয় দলে অভিষেক হয় তার। ক্যারিয়ারের জাতীয় দলের জার্সিতে ১৮টি টেস্ট খেলে ৪৪ উইকেট পেয়েছেন তিনি। আর ৬২ ওয়ানডেতে পেয়েছেন ৬৮ উইকেট।
অন্যদিকে ২০০০ সালের ফেব্রুয়ারিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পথচলা শুরু হয় ভারতীয় ক্রিকেটার ওয়াসিম জাফরের। তিনি শেষবার আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেন ২০০৮ সালে। ক্যারিয়ারের মূলত টেস্টই খেলতেন এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান। ওয়ানডে খেলেছেন মাত্র ২টি। ৩১ টেস্টে তার ১৯৪৪ রান করেছেন তিনি। আর ২টি ওয়ানডেতে করেছেন ১০ রান। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ছাড়ার আগে থেকেই পেশাদার কোচিংয়ে হাতেখড়ি হয়েছিল ওয়াসিম জাফরের। আর এবার নেইল ম্যাকেঞ্জির অনুপস্থিতিতে বাংলাদেশ জাতীয় দলের ব্যাটিং কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালনের সুযোগ পেলেন তিনি। এর মধ্য দিয়ে প্রথমবারের মতো কোনো জাতীয় দলের ব্যাটিং কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে যাচ্ছেন সাবেক এই ভারতীয় ব্যাটসম্যান।
জাফর অবশ্য বাংলাদেশের ক্রিকেটের সঙ্গে আগে থেকেই সম্পৃক্ত আছেন। এর আগে এক বছরের জন্য বাংলাদেশের হাইপারফরমেন্স ইউনিটের (এইচপি) ব্যাটিং কোচ নিযুক্ত হয়েছিলেন সাবেক এই ভারতীয় ক্রিকেটার।
এতদিন পর্যন্ত বাংলাদেশ জাতীয় দলের ব্যাটিং কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার নেইল ম্যাকেঞ্জি। তার সঙ্গে চুক্তি নবায়নের ব্যাপারে ইচ্ছুক বিসিবি। তবে আপাতত ম্যাকেঞ্জিকে পাওয়া যাচ্ছে না। পারিবারিক কারণে শ্রীলঙ্কা সফরে টাইগারদের সঙ্গে থাকতে পারবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন তিনি। এ কারণেই শ্রীলঙ্কা সফরের জন্য জাফরকে টাইগারদের ব্যাটিং কোচ হিসেবে নিয়োগ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিসিবি।
বিশ্বকাপের আগে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ চলাকালে বিশেষ ব্যবস্থায় সৌম্য সরকার তামিম ইকবাল ও মোহাম্মদ মিঠুনের সঙ্গে কাজ করেছেন ওয়াসিম জাফর। এরপর জাফরের ওপর এইচপির ব্যাটিং কোচের দায়িত্ব দেয় বিসিবি।
ওয়াসিম জাফর ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে খেলতে এসেছিলেন মূলত আবাহনীর খেলোয়াড় হিসেবে। সেখানে জাফরের ব্যাটিং এবং জুনিয়র ক্রিকেটারদের পরামর্শ দেয়ার ক্ষমতা দেখে তাকে এইচপির দায়িত্ব দেয় বিসিবি। প্রাথমিকভাবে বাংলাদেশের অনূর্ধ্ব-১৬, অনূর্ধ্ব-১৯ এবং ‘এ’ দল ছাড়াও একাডেমির সিনিয়র দলের ব্যাটিং পরামর্শদাতা হিসেবেও কাজ করার জন্য চুক্তিবদ্ধ হন জাফর।
আর এবার পেলেন জাতীয় দলের ব্যাটিং কোচের দায়িত্ব। শ্রীলঙ্কা সফরের জন্য ওয়াসিম জাফরকে জাতীয় দলের ব্যাটিং কোচ করার বিষয়টির নিশ্চয়তা পাওয়া যায় বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান আকরাম খানের বক্তব্যে। তিনি জানান, এই সফরে জাতীয় দলের ব্যাটিং কোচের দায়িত্ব পালন করবেন ওয়াসিম জাফর। তিনি এখন বিসিবির গেম ডেভেলপমেন্টের ব্যাটিং কোচ হিসেবে কাজ করছেন।
শ্রীলঙ্কা সফরে রামানায়েকে বোলিং ও জাফর ব্যাটিং কোচের দায়িত্ব পালন করবেন। আর অন্তর্বর্তীকালীন প্রধান কোচ হিসেবে থাকবেন সাবেক টাইগার ক্রিকেটার খালেদ মাহমুদ সুজন। তিনি এর আগেও টাইগারদের অন্তর্বর্র্তীকালীন কোচের দায়িত্ব পালন করেছেন। সেটা চন্ডিকা হাথুরুসিংয়ের বিদায়ের পর। সাবেক এই অলরাউন্ডার বাংলাদেশের হয়ে ১২টি টেস্ট ও ৭৭টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন। ওয়ানডেতে ৯৯১ ও টেস্টে ২৬৬ রান করেছেন তিনি। আর বল হাতে ওয়ানডেতে ৬৭ ও টেস্টে ১৩ উইকেট পেয়েছেন এই মিডিয়াম পেসার।

source: ভোরের কাগজ

LEAVE A REPLY