ছাত্রীকে যৌন হয়রানির মামলায় শিক্ষক গ্রেপ্তার

স্কুলছাত্রীকে যৌন হয়রানির মামলায় পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার এক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সোমবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে ঢাকার শাহবাগ এলাকা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার ব্যক্তির নাম মোজাম্মেল হক। ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুঠোফোনে মোজাম্মেল হককে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

অন্যদিকে একই অভিযোগে মোজাম্মেলকে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের পদ থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। সোমবার বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি স্বাক্ষরিত বরখাস্তের একটি চিঠি উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে।

মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সেলিম আক্তার চিঠি পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এরই মধ্যে মোজাম্মেলকে সাময়িক বরখাস্তের সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হয়েছে।

ঈশ্বরদী থানা-পুলিশ জানায়, ছাত্রীর করা মামলার পর থেকে মোজাম্মেল হক আত্মগোপনে ছিলেন। তাঁকে গ্রেপ্তারের জন্য সোর্স ও প্রযুক্তি ব্যবহার করে পুলিশ। সোর্সের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ঈশ্বরদী থানা-পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) শাহীন তালুকদারের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের একটি দল রোববার ঢাকায় যান। তাদের কাছে তথ্য ছিল মোজাম্মেল শাহবাগ এলাকায় আছেন। ওই তথ্যের ভিত্তিতে সোমবার বিকেলে শাহবাগের অদূরে সড়ক থেকে মোজাম্মেলকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দিন ফারুকী বলেন, প্রধান শিক্ষক মোজাম্মেল হককে গ্রেপ্তারের পর ঈশ্বরদীতে নেওয়া হয়েছে। পরে তাঁকে আদালতে পাঠানো হবে।

উল্লেখ্য, অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে গত ২৭ মে মোজাম্মেল হকের বিরুদ্ধে ঈশ্বরদী থানায় মামলা হয়। এর আগে ওই ছাত্রী ঈশ্বরদীর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দেয়। তদন্তে ইউএনও আহাম্মদ হোসেন ভুঁইয়া অভিযোগের সত্যতা পান ও ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য পুলিশকে নির্দেশ দেন।

LEAVE A REPLY