গ্যাঁড়াকলে ম্যারাডোনা

ফুটবল কিংবদন্তি ম্যারাডোনা ছয় বছর প্রেম করেছেন বান্ধবী রোচিও অলিভারের সঙ্গে। এতটাই মধুর সম্পর্ক ছিল যে, বান্ধবীকে বিলাসবহুল বাড়িও কিনে দিয়েছিলেন ম্যারাডোনা। তবে প্রেম যে কপালে সইল না তার। গত ডিসেম্বরে তাকে ছেড়ে চলে যান অলিভার। প্রেমের সঙ্গে সঙ্গে সুখটাও যেন তার চলে গেল। কারণ সাবেক প্রেমিকাই তার নামে মামলা করেছেন। সম্পর্ক বিচ্ছেদের জন্য ম্যারাডোনার বিরুদ্ধে ৯ মিলিয়ন ডলার বা ৭৬ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ মামলা করেছেন তিনি। এসব কারণে গ্যাঁড়াকলে পড়ে গ্রেপ্তার হন ম্যারাডোনা।
মেক্সিকো থেকে দেশে ফেরার পর পরশু রাতে পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হন তিনি। তবে তাকে জেলে পুরেনি পুলিশ। গ্রেপ্তার দেখিয়ে ছেড়ে দিয়েছে তাকে। তবে এর জন্য লিখিত প্রমাণ রেখে দিয়েছে পুলিশ। আগামী ১৩ জুন তাকে আবার আদালতে হাজিরা দিতে হবে।
২০১২ সালে ম্যারাডোনা ও অলিভারের প্রথম দেখা হয়। সেই থেকে তাদের প্রেম শুরু হয়। দুজনের বয়সের মধ্যে ত্রিশ বছরের ফারাক থাকলেও চুটিয়ে প্রেম চলে টানা ছয় বছর। তবে কয়েকটি কারণে সম্পর্কের দূরত্ব সৃষ্টি হতে থাকে তাদের মধ্যে। এর অন্যতম কারণ ছিল ম্যারাডোনার মেক্সিকোতে কোচিং করতে যাওয়া। ম্যারাডোনা মেক্সিকোতে থাকলেও অলিভার থাকতে চাইতেন আর্জেন্টিনাতেই। বিষয়টি নিয়ে দুজনের মধ্যে ছোট খাট ঝগড়া হতো। তা ছাড়া অলিভার একবার এক টিভি সাক্ষাৎকারে নিজেকে সিঙ্গেল বলে দাবি করেছিলেন। এটা নিয়েও দুজনের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। আরো কিছু কারণে দুজনের একসঙ্গে থাকা অসম্ভবপর হয়ে পড়লে গত বছরের ডিসেম্বরে আলাদা হয়ে যান তারা।

source: ভোরের কাগজ

LEAVE A REPLY